Category: তন্ত্র-বশীকরণ

সর্বজন বশীকরণ মন্ত্র

সর্বজন বশীকরণ মন্ত্রঃ কালক্ষেত্রে ছা চি খান মেঘবর্ণ পান। ক্রোধে সুজিলেন দেবী গোয়াখান।। কালাকার সারে ইহা ঘোরা কালী সারে। কালের কাল কাটে ইহা ঘোরকোলি কাটে।। আমার এই পানপড়া লাগে যে গো তার।। বক্ষেতে বসিয়া সেই পর্ব্বত সমরয়। নাচে কালের কাল নাচে ঘোরা কালী।। তাতে তাতে বলি হাতে দিয়া তালি।। ওমা...

স্বামীকে স্ত্রীর প্রেমে পাগল করা মন্ত্র

স্বামীকে স্ত্রীর প্রেমে পাগল করা মন্ত্রঃ পরাইতে ফুল তুলি ফুলে ফুলে খাই। এই ফুল পড়ায় না মানে বাপভাই। ঘর অবদি ভাবে সে যে আর ভাঙ্গে হাড়ি। সকল ভাঙ্গিয়া বালা করে দেখ কাড়ি।। দক্ষিণা করে তুলে তুলে লয় কালিকার ফুল। সেই ফুল হইল দেখ মন্ত্রের অতুল।। আমার এই ফুল পড়া যদি...

দৃষ্টি দিয়ে নারী বশিকরন

দর্শনের নারী বশিকরনঃ প্রদীপে রহিয়া তেল মিটি মিটি জ্বলে। মুখে দিলে সেই তেল রত্নসম জ্বলে। নরসিংহ রায় তুমি কোথায় আছহ।।  তোমার মন্ত্রের বীঙ্গ হেথায় থোয়হ।  নরসিংহ রায় বলে ভয় কিবা তোমা।। মহীর মধ্যে বল কেবা ছারা আমা। অমুকার কু জ্ঞান ছাড়াইব সুখে।  তিলপটি যদি দাও উম্‌কার মুখে। বশীভুতা হয়ে সে...

স্ত্রী বশিকরনে হাড় পড়া

স্ত্রী বশিকরনে হাড় পড়াঃ আমার সোনার পাখী উড়ে কোথা যাস। তোরে না পাইলে মোর মেটে নাকো আশা। উড়িলে মরিবে তুমি, লুটিয়ে পড়িবে ভূমি। কোন বনে যাবি চলি, ধরিয়া আনিব বলি। দোহাই দিব কার? আয় শীগগীর চলে আয়। নইলে মারব তোরে বায়।। যে পুস্করিণীতে পানকৌড়ী পক্ষী থাকে তাহা প্রথমে লক্ষ করিয়া...

বশিকরনে চাঁপা ফুল পড়া

চাঁপা ফুল পড়াঃ ফুল পড়েন ফুলেশ্বরী, নামে দেবী কামেশ্বরী, নামে ফুল আপনার পায়। ফুলপড়া মারলাম অমুকের গায়।। দেখলে তরে না দেখলে মরে, ধেয়ে এসে দু’চরণ ধরে পড়ে। বর বাঁয়ে দু’চার বাঁয়ে বাঁয়ে লোহার ছেকল, আঠারো দোয়ার বাঁয়ে রাখি, আবার নিয়ে নিকল।। এই মন্ত্র যদি নড়িস।। এই মন্ত্র যদি নড়িস, ঈশ্বর...

অবাধ্য স্ত্রী বশীকরণ মন্ত্র

অবাধ্য স্ত্রী বশীকরণ মন্ত্রঃ আউন্তি যাউন্তি না আসন্তি বাই। নাউন্তি বাসন্তি চলন্তি গাই।। খিদমুণ্ডা না আসে হিন্থাকে। চলি গেলা বল বাই কন্থাকে।। খাওয়া পরা দিয়া আরে এতে কৈনু বড়। কাহার লাগিয়া সে যে এত হৈলে দড়।। ভিরমুণ্ডা সাইয়ের আজ্ঞা অন্য কার নয়। ফিরিয়া ফিরিয়া বামা আমা প্রতি চায়।। আমা না...

পরমা সুন্দরী বশীভূত করার মন্ত্র

সিন্দুর পড়াঃ মদন রাজা দেখতে ভাল ভূলে যেত নারী, চন্দ্রকন্যা রুপ চাই দোহাই দিয়ে তারি। ফুল ধনু ফুল বাণ, করলাম আমি সন্ধান। অমুকীর টেনে আন প্রাণ, দোহাই মদন দেবের দোহাই। ফুল ধনুর দোহাই।। অশ্বন্থ গাছকে জাড়াইয়া যে নিমগাছ উঠিয়াছে তাহার শিকড় আনিয়া ঐ শিকড় গঙ্গাজল দ্বারা পেষণ করতঃ কালিমাতার সিন্দুর...

দুষ্টা স্ত্রীর মন পাওয়া

দুষ্টা স্ত্রীর মন পাওয়ার মন্ত্রঃ কদলি কদলি ওলো তুই অতি বড়। সব কাজেতে দেখি তোমার যে দড়। চোখ রাখি আমি তাহারে দেখিব। কালিকার বরে আমি তাহার পাইব। যতবার যায় সে আমার প্রতি চায়। আদর করিয়া সে যে ধরে মোর পায়। আদ্য অন্ত তুমি কোথায় গো আছ। তৎপর হও গো তুমি অমুকের...

স্বামী বা প্রেমিক কে স্ত্রীর বাধ্য করণ তন্ত্র

স্বামী বা প্রেমিক কে স্ত্রীর বাধ্য করণ তন্ত্রঃ রেশমী কাপড়ের উপর তালিশ, কুট, টগর এর লেপন দিয়ে তা দিয়ে বাতি বানাতে হবে। এবার ওটাকে সর্ষে তেলের প্রদীপে জ্বালিয়ে তা দিয়ে কাজল বানাতে হবে। এবার ঐ কাজলের টিকা নিজ পতিকে লাগাতে হবে। এররুপ করলে উক্ত পতি চিরকাল ঐ স্ত্রীর বাধ্য থাকিবে।...

ত্রিভুবন বশীকরণ মন্ত্র

ত্রিভুবন বশীকরন মহা মন্ত্র মন্ত্রঃ ওঁহম নমো ভগবতী মাতেশ্বরী সর্বমুখর জানি সর্বথা মহামায়া মাতংগে কুমারিকে নন্দ নন্দ জিহ্ব সর্বলোক বশ্য কুরু কুরু স্বাহা।। উপরক্ত মন্ত্র বিধিমত ১০ হাজার বার জপ করে সিদ্ধ করতে হবে। এরপর চন্দ্রগ্রহনের দিন শ্বেত বিষ্ণকান্তার শিকড় এনে এই মন্ত্রে অভিমন্ত্রিত করে চোখে লাগালে ত্রিভুবন তার বশীভুত...

error: Content is protected !!