Category: শাবরতন্ত্র

হাত চালা মন্ত্র

হাত চালা মন্ত্রঃ মন পবনে হাত চলে! হাত চলতে পবন চলে। চলরে হাত ত্বরা চল্। চলরে হাত শীঘ্র চল্।। যদি না চলিস- যে ভাদ্রমাসে তাল চুরি করে। তার পোঁদতল দিয়ে যাস্।। কার আজ্ঞে? কামাখ্যা দেবীর আজ্ঞে। বিষহরির আজ্ঞে। হাড়ির ঝি চণ্ডীর আজ্ঞে। ২য়,  হাত চালা মন্ত্রঃ চাল কাটে চালোয়ান কাটে।...

সর্বপ্রকার ক্ষতি হতে মুক্তি পাওয়া

সর্বপ্রকার ক্ষতি হতে মুক্তি পাওয়ার আত্মসার মন্ত্রঃ আদোর দেবকতা বন্দ বন্দ নিরঞ্জন। ধর্মের বন্দনা করি মন্ত্রের সাধন।। বন্দিব জয়দুর্গা আমি হয়ে সাবধান। মনসা মাতায় বন্দ নাগিনী প্রধান।। শিক্ষা দীক্ষা গুরু বন্দ ব্রক্ষার চরণ। যা হতে দেখিলাম আমি মরত তবন।। ডাইনে যোগিনী বন্দ মনিস্থির হয়ে। বন্দিতে বন্দিতে যেবা এড়াইয়া যায়।। শত...

মানুষের গলার ভিতরে মাছের কাঁটা ফুটিলে তাহা বাহির করার মন্ত্র

মানুষের গলার ভিতরে মাছের কাঁটা ফুটিলে তাহা বাহির করার মন্ত্রঃ সমুদ্রে মধ্যে অরমু সমুদ্রের গাঙ্গা। সেই গাঙ্গের মাছ কুইরায় ধইরা যে খায়। খাইয়া কুইরা উইরা সে যায়। অমুকের গলার কাঁটা মাগে দিয়া চলে যায়। নিয়মঃ মন্ত্রটি ভাল করিয়া শিক্ষা করিতে হইবে। যদি কাহারো গলায় মাছের কাঁটা ফুটে তবে উক্ত মন্ত্র...

সাপের বিষ হাত দ্বারা ধুওয়াইয়া নামানো মন্ত্র

সাপের বিষ হাত দ্বারা ধুওয়াইয়া নামানো মন্ত্রঃ টিং টিং টিংগের বিষ, কৈ যাস বিষ ধাইয়া। ঘাউ মুখে ঝাড়লাম বিষ, নাওনা যাস বাইয়া। অণু কোটি বাণ তারা দিল ভর যে নালে উঠছত কাল কিনি নাগিনী বিষ সেই পথে চল। বর্মা বিষ্ণু কাইন্দা বিকুল, শীগগীর চলিয়া বিঘ ঘাউ মুখে চল। ফলনার অঙ্গের...

অর্শরোগ ভাল হইবার মন্ত্র ও ঔষধ

অর্শরোগ ভাল হইবার ঔষধঃ ১. পনি পড়া মন্ত্রঃ অন্তরেরই গ্যাস গোসা রক্ত পড়ে ফোঁটা ফোঁটা চাঁন সূর্য দুই ভাই তার মাথা খাই যদি না হারস তার ধর্মের দোহাই ২. ঔষধঃ জইন সজ আধা ছটাক। কাঁচা হলুদ আধা ছটাক। আদা আদা ছটাক। ডণ্ড কোলস বা গোমার গাছের পাতা আধা ছটাক। খাঁটি...

পল্লপ

পল্লপঃ রসুন দুই ছটাক ও মুছাব্বর এক তোলা একত্রে পিষিয়া তিনদিন রোগীর শরীরের যে অংশ অবশ হইয়া গিয়াছে সেই অংশে পল্লপ দিলে খোদায় অর্দ্ধাঙ্গ রোগের তদবীর নিম্ন নিয়ম অবশ্যই পালন করিতে হইবে। নতুবা তদবীরকারীর ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। রোগীর বাড়ী হইতে প্রথম একটি হাঁস একত্র করে সিন্নী পাক করে ছোট-ছোট...

সাপের বিষে লবন পড়া

লবণ পড়া মন্ত্রঃ আপ কালা আতশ কালা মণি সাবকে সাবকে ডাকি মুর্শিদ আমি দরশন দেও তুমি। শ্বাসে শ্বাস টানে বিষে বিষ টানে আজ হতে বিষের পাঁচ আত্মা পাঁচ পরাণ কাইড়া খাইলাম আমি। নিয়মঃ সাপের বিষ ঝাড়িয়া নামানোর পর লবণ পড়া মন্ত্র পাঠ করিয়া লবণের মধ্যে তিন দফা ফুঁক দিয়া রোগীকে...

অর্দ্ধাঙ্গ রোগের মন্ত্র ও ঔষধ

অর্দ্ধাঙ্গ রোগের মন্ত্র ও ঔষধঃ পূর্বে থিকা পশ্চিমে যাও খাকারে বিষ উজান ধাস মা পদ্যার মাথা খাস। (ছু নাম।) নিয়মঃ উপরোক্ত মন্ত্র পাঠ করিয়া অর্দ্ধাঙ্গ রোগীকে ঝাড়িতে হইবে। তিন দিন সকাল ও বিকালে মুথা হাছুন দ্বারা। ঔষধঃ গিঠা বাগুন, মুছাব্বর সমপরিমাণ লইয়া মিহিন পিষিয়া বুট পরিমান বটিকা তৈয়ার করিয়া রোগীকে...

মালিশের ঔষধ

মালিশের ঔষধঃ গোপাল ঘি ও পুরাতন ঘি সমপরিমাণ লইয়া একত্র করিয়া রোগীর শরীরের যে অংশ অবশ হইয়া গিয়াছে সেই অংশে মালিশ করিতে হইবে। তিন দিন সকালে ও বিকালে।

সাপের বিষের আঁচুলী বান্ধা মন্ত্র

সাপের বিষের আঁচুলী বান্ধা মন্ত্রঃ মা পদ্যার দোহাই ওহে ধোপর ঝি কাঁপড় কাঁচ। পদ্য পাটি বিষ বাসুলী ওহে ধোপার ঝি কাল কুটি নাগিনী বিষ থাক বিষ আঁচল পড়িয়া। আমি যাই ঈশ্বর মহাদেবের সেবা করি। মন্ত্র শিক্ষা করার নিয়মঃ মন্ত্রটি শনিবার দিন শিক্ষা করিতে হইবে। যাহাকে সাপে কামড় দিবে তৎক্ষণাৎ তাহার...

error: Content is protected !!