Category: শাবরতন্ত্র

নাম দিয়ে বশীকরণ

নাম দিয়ে বশীকরণ মন্ত্রঃ আং চাং মাং ফান্নির দশ দশা দশ কাম হরিয়া আন। তুই যেমন একজন শিব শক্তি তেমন, মিল করি দে মোর ফান্নির মন। ফান্নার বেটা ফান্নিটাক আন আল্লাহর মর্জি আকাম করিয়া দে দান। প্রয়োগ বিধিঃ বৃহস্পতিবার শেষ রাতে এই মন্ত্র একশত একবার পড়ে নিজের শরীরে ফুঁ দিয়ে...

অবাধ্য স্ত্রী বশীকরণের মন্ত্র

অবাধ্য স্ত্রী বশীকরণের মন্ত্রঃ প্রদীপে রহিয়া তেল জ্বল জ্বল করে, জ্বলিতেছে জ্যোতি-স্বরুপ তাহার ভিতরে। জ্বলুক অগ্নি জ্যোতির আজ্ঞায়, আমার স্ত্রীর নাম পড়ুক তথায়। চঞ্চলা সে যেন সদায় থাকে অস্থির, আমার জন্যে এখন হয় সে অধীর। কার আজ্ঞে? হাড়ির ঝি চন্ডীর আজ্ঞে কামাক্ষ্যা মায়ের আজ্ঞে। প্রয়োগ বিধিঃ এই মন্ত্রটি ৮০ বার...

পান পড়ার প্রভাবশালী মন্ত্র

সর্ব  বশীকরণে পান পড়ার প্রভাবশালী মন্ত্রঃ পান পান মহাাপান এই পান খায়, ফন্না ফন্নির মন এক হয়ে যায়। জীয়েতে বহু আর কৃষ্ণ চলে, মহাদেব মহাদেবী পড়ে ঢলে ঢলে। পান পড়া না লাগে যদি রসুলুল্লা খোদা কি এক তন দে বারেক আল্লাহ। প্রয়োগ বিধিঃ তিনবার এই মন্ত্র পড়ে নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে পান...

বশীকরণে ধুলা পড়া মন্ত্র

বশীকরণে ধুলা পড়া মন্ত্রঃ ঠুন ঠুন নড়ি বাজে ফান্নি ফান্নাক দেখে হাসে। হাসুক ফান্নি চোর হোক ফান্নি ফান্নার মুখ দেখুক। প্রয়োগ বিধিঃ এই মন্ত্র একবার পড়ে তিনবার রাস্তার ধুলায় ফুঁ দিয়ে সেই ধুলো বাম হাতর বৃদ্ধ, তর্জনী ও মধ্যমা আঙ্গুলে নিয়ে নির্দিষ্ট ব্যক্তির গায়ে ফেলে দিতে পারলে সে বশীভূত হবে।

পান পড়ার বিশেষ মন্ত্র

পান ও চুন পড়া মন্ত্র দিয়ে বশ করাঃ চোখে চোখে দেখিনু চার চোখে বন্দিনু। শিবের মাথায় দিয়া পাও, কালী দুর্গা তুই মাও। যাতে ফান্না না আইছি ঘুরিয়া তাতে ফান্নি থাক বেকিয়া। প্রয়োগ বিধিঃ হাটে যে দোকানী প্রথম দোকান খুলবে তার নিকট থেকে দুটো মুখোমুখি থাকা সুপারি কিনতে হবে। অনুরুপ যে...

সর্ব বশীকরণে মিষ্টি পড়া

সর্ব বশীকরণে মিষ্টি পড়াঃ আং চাং মাং বন্দিনু হাত খান। যদি চেংড়ি নাই ভুলিবো দোহাই কালী কার্ত্তিকের মুন্ডু খাব। প্রয়োগ বিধিঃ এই মন্ত্রটা ২১ বার পাঠ করে মিষ্টান্নে ফুঁ দিয়ে সেই মিষ্টান্ন যাকে খাওয়ানে যাবে সেই বশীভূত হবে।

ভালোবাসার রমণীকে বশীকরণ মন্ত্র

ভালোবাসার রমণীকে বশীকরণ মন্ত্রঃ ফেন্নী ফেন্নী মোর চক্ষু  দরশন চাইর চক্ষু হয়্যা যায় নিরঞ্জন। মোন না দেখলে পরে, ফেন্নী ফান্না আছড়ে মরে। প্রয়োগ বিধিঃ কোনো রমণীকে বশীভূত করার ইচ্ছা থাকলে উক্ত রমণীর নাম উল্লেখ করে মন্ত্রটি সকাল সন্ধ্যায় সাত বা নয় দিন এক নাগাড়ে পাঠ করলে রমণী বশীভূত হবে।  ...

যেকোন ব্যক্তিকে বশীকরণ মন্ত্র

যেকোন ব্যক্তিকে বশীকরণ মন্ত্রঃ ধোপার হাট ধোপার হাট ধোপার সিংহাসন, ধোপার কাষ্ঠে দেখি জুড়াই কুম্ভীরের নাচন। অষ্ট ঘড়ি অষ্ট পহর অমুক থাকি অমুকের কাধের উপর। অমুক ছাড়া পা বাড়াও আল্লাহ রসূল মা বরকত শেখাও। প্রয়োগ বিধিঃ এই মন্ত্র একবার পড়ে নির্দিষ্ট ব্যক্তির শরীরে তিনবার ফুঁ দিতে পারলে সে বশীভূত হবে।

তেল দিয়ে বশীকরণ প্রয়োগ

তেল দিয়ে বশীকরণ প্রয়োগঃ এক তেল দুই তেল তিন তেল লড়ে চড়ে, অমুকের হাসি পাও পড়ে মা কালী দিলে বর অমুকের সঙ্গে জোড়া কর। প্রয়োগ বিধিঃ এই মন্ত্র তেলে ফুঁ দিয়ে যাক বশ করার ইচ্ছে অতি কৌশলে তার মাথায় লাগিয়ে দিতে হবে।

সর্ব স্ত্রী/পুরুষ বশীকরণ মন্ত্র

সর্ব স্ত্রী/পুরুষ বশীকরণ মন্ত্রঃ ধুলি জয় জয়, এই ধুলি কসে দিছি ফান্না ফান্নির গায়। এক যমুনা বারো গোপাল রাধে আর রাধে, এ কাজ করিয়া দাও ফান্না ফান্নির এক সাথে। ধর্মের দোহাই। প্রয়োগ বিধিঃ এই মন্ত্র তিনবার পাঠ করে পান বা মিষ্টি জাতীয় দ্রব্যকে মন্ত্রপূত করে যে পুরুষ বা রমণীকে খাওয়ানো...

error: Content is protected !!