Category: অশরীরি

বিসূচিকা রাক্ষসী মন্ত্র

বিসূচিকা রাক্ষসী মন্ত্রঃ হিমাদ্রেরুত্তরে পার্শ্বে কর্কটি নাম রাক্ষসী। বিসুচিকাভিধানা সা নাম্মান্থায় বাধিকা।। হিমালয় পর্বতের উত্তর পার্শ্বে কক’টি নামে যে রাক্ষসী বাস করে তাকেই বিসুচিকা রাক্ষসী বলা হয়। এর অপর নাম অন্যায় বাধিকা।

বিসুচিকা রাক্ষসী মন্ত্র

বিসুচিকা রাক্ষসী মন্ত্রঃ মন্ত্রঃ-ওঁ হ্রীং হ্রাং রীং রাং বিষ্ণুশক্তয়ে নমঃ। ওঁ নমো ভগবতী বিষ্ণু শক্তিমেনাং। ওঁ হর হর নয় নয় পচ পচ মথ মথ উৎসাদয় উৎসাদয় দূরী কুরু স্বাহা। হিমবন্তং গচ্ছ জীব সঃ সঃ সঃ। চন্দ্রমণ্ডলগতেহসি স্বাহা। ইতি মন্ত্রং মহামন্ত্রং ন্যস্য বাম কারোদিরে। মার্জযেদাতুরাকারং হস্তেন হস্তেন সংযুতঃ। হিমশৈলাভিমুখ্যেন বিদ্রুতাং তাং...

ডাইনীর নজর দূর করা

ডাইনের নজর দূর করার দাওয়াঃ নিশাদল চুনের সঙ্গে মিশাইয়া রোগীর নাকের মধ্যে ধরিলে আল্লাহর রহমতে সঙ্গে সঙ্গে পালাইয়া যাইবে।

জ্বিন ভুতের আছর দুর করার তদবীর

জ্বিন ভুতের আছর দুর করার তদবীরঃ এক খন্ড কাপড় নিয়া বাটা কাঁচা হলুদ দ্বারা রাঙ্গাইয়া উহা ৪০ টি টুকরা করিয়া ৪০ টি সলিতা বানাইবে। অতঃপর ৪০ দিন যাবৎ প্রত্যহ রাত্রিবেলা রোগীর নিদ্রাস্থলে একটি করিয়া সলিতা আগুনে জ্বালাইবে। ইহাতে উপর ওয়ালার কৃপায় জ্বিন ভুতের আছর দুর হইয়া যাইবে।

জ্বিনের উপদ্রপ হতে মুক্তির তদবীর

জ্বিনের উপদ্রপ হতে মুক্তির তদবীরঃ “বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম, হাযা কিতাবুম মিম মুহাম্মাদির রাসুলিল্লাহি রাব্বিল আলামীন ইলা মাই ইয়াত্বরুকা লিদারিম মিনাল আম্মারি ওয়ার রুজাওয়াজি ওয়াল ত্বারিকাই ইয়াত্বরুকু বি খাই রিন। আম্মা বা’দু ফাআনা লানা ওয়া লাকুম ফিল হাক্কি সাআতুন ফাইন কুনতা আশিকান মাওলাআন আও ফাজিরান মুক্বতাহিমান, ফাহাযা কিতাবুল্লাহি ইয়ানত্বিকু আলাইনা ওয়া...

জ্বিন-পরী বা ভূত-প্রেতের আছর হতে মুক্তি

জ্বিন-পরী বা ভূত-প্রেতের আছর হতে মুক্তিঃ কারো উপর জ্বিন -পরী বা ভুত-প্রেতের আছর হলে তার বাসস্থানে ১০০ বার নিন্মের আয়াত পাঠ করে ফুঁ দিবে তাহলে তার আছর দুর হবে। “ওয়ালাক্বাদ ফাতান্না সুলায়মানা ওয়া আলক্বাইনা আ’লা-কুরসিয়্যিহী জাসাদান সুম্মা আনাব।”

সর্ব প্রকার আছর দূর

সর্ব প্রকার আছর দূরঃ যে গৃহে বা বাড়ীতে জ্বীন শয়তান ও ভূত-প্রেতের আসা যাওয়ার কারণে আছর হইয়া ক্ষতির আশংকা থাকে, তাহা দুর করিবার জন্য চারটি বড় লোহার পেরেক লইয়া উহার প্রত্যেকটির উপর নিম্মক্ত আয়াত ২৫ বার পড়িয়া প্রতিবার দম করিবে। অতঃপর গৃহের চার কোনায় একটি করিয়া পেরেক পূঁতিয়া রাখিবে। আল্লাহ...

জ্বীনের আছর নষ্ট করার তদবীর

জ্বীনের আছর নষ্ট করার তদবীরঃ কোন মানুষের প্রতি জ্বীনের আছর হইলে, সুরা ফাতেহা, আয়াতুল কুরসী এবং সুরা জ্বীনের প্রথম পাঁচ আয়াত একবার করিয়া পড়িয়া প্রতিবারে এক গ্লাস পানিতে দম করতঃ উক্ত পানি আছর গ্রস্ত রোগীর মুখমন্ডলে ছিটাইয়া দেবে। আল্লাহ পাকের রহমতে জ্বীনের আছর নষ্ট হইয়া যাইবে।

অতি সত্তর  যাদুগ্রস্থ্য রোগী আরগ্য লাভের তদবীর

অতি সত্তর  যাদুগ্রস্থ্য রোগী আরগ্য লাভের তদবীরঃ সূরা নাস, সূরা ফালাক্ব এবং উপরের আয়াত সমূহ লিখিয়া কবজ বানাইয়া যাদুগ্রস্থ রোগীর গলায় বাঁধিয়া দিলে অতি সত্তর রোগী আরগ্য লাভ করিবে।

error: Content is protected !!