বশীকরনের জন্য

বশীকরনের জন্যঃ

পূর্ণিমার অর্ধরাত্রে একটি প্যাঁচা ধরে, তার জানু দুটি থেকে দুটি করে পালক তুলে নিয়ে প্যাঁচাটিকে ছেড়ে দেবে। তারপর সেই সময়ে কোনও খাল বা বিলের ধারে গিয়ে খালের জলে স্নান করবে ও পালক দুটিকেও স্নান করিয়ে ধুয়ে নেবে।

পরে ভিজে কাপড়েই খালের ধারে পূর্বদিকে মুখ করে বসে পালক দুটি একটি পাত্রে নিজের সামনে রাখবে, তারপর নিম্নলিখিত মন্ত্র একলক্ষ বার জপ করবে।

মন্ত্র-“ওঁ নমো লক্ষ্মী বাহন পেচকায় নমঃ, কাকারি নমঃ, বিষ্ণু দেবায় ওঁ চং টং তং দং যং শং শ্রীং শ্রীং হ্লীং ক্লীং ফট্ স্বাহা।”

প্রতিবার মন্ত্রচ্চারণের পর পালক দু’টিতে ফুঁ দিতে হবে। জপ সম্পূর্ণ হলে বাড়ীতে ফিরে আসবে। পরে একটি পালক তাবিজে ভরে নিজের বাহুতে বাঁধবে, এবং ‍দ্বিতীয় পালকটি দ্বিতীয় পুরুষ বা নারীর দেহে স্পর্শ করাবে। এই প্রয়োগের দ্বারা অভিলষিত পুরুষ বা নারী সাধকের বশীভূত হবে।

You may also like...

error: Content is protected !!